বুধবার, অক্টোবর ৫, ২০২২

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সবার আগে

বেড়েছে শিক্ষা উপকরণের দাম, বিপাকে শিক্ষার্থীরা

আব্দুর রশিদ মানিক:

কক্সবাজার শহরের কুতুবদিয়াপাড়া থেকে সন্তানদের জন্য লেখার কাগজ কিনতে এসেছেন মুর্শেদা বেগম। তিনি কাগজ কিনতে এসে একটা দোকানে গিয়ে দেখেন প্রতি দিস্তাত দাম আকারভেদে ২৫-৩০ টাকা। কয়েকটা দোকান ঘুরে দেখেন একই অবস্থা। হঠাৎ করে সবধরনের কাগজের দাম বেড়ে যাওয়ায় এক পর্যায়ে তিনি কাগজ না কিনেই ফিরে যান বাড়িতে।

মুর্শেদা বেগমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমার চার সন্তান। পড়ালেখা করতে গেলে যা লাগে সবকিছুর দাম বেড়ে গেছে। এখন আমাদের মতো গরীব মানুষের সন্তানরা কিভাবে পড়ালেখা করবে এখন।

 

দেশে অন্যসব নিত্যপণ্যের মতো সব ধরনের শিক্ষা উপকরণের দাম ৩০ থেকে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে গেছে। বেড়েছে বই ও কাগজের দাম। বিভিন্ন ধরনের তৈরি খাতার দাম বেড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ।

বুধবার কক্সবাজার শহরের পৌরসভা মার্কেট এবং রক্ষিত মার্কেটের বিভিন্ন স্টেশনারি ও বয়ের দোকান ঘুরে দেখা গেছে, কাগজ, খাতা, পেন্সিল, রাবার, ব্যবহারিক খাতা, মার্কার, স্কুল ফাইল, অফিস ফাইল, বাচ্চাদের লেখার স্লেট, ক্যালকুলেটর, সাদা বোর্ড, জ্যামিতি বক্স, টালি খাতা, কলম বক্স, স্কেল, পরীক্ষায় ব্যবহৃত ক্লিপবোর্ড, কালিসহ বাড়েনি এমন কিছুই খুঁজে পাওয়া যাবে না।
স্টেশনারি ও শিক্ষা উপকরণ বিক্রির দোকানগুলোতে ৬০ টাকার ব্যবহারিক খাতা এখন ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মানভেদে বিভিন্ন ধরনের তৈরি খাতার দাম বেড়েছে পিসপ্রতি ৫ থেকে ১০ টাকা। মিনি ফাইল প্রতিটি ১৫ টাকা থেকে বেড়ে ২০ টাকা, জিপার ফাইল ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কলমের দাম ডজনপ্রতি বেড়েছে ১০ থেকে ১৫টাকা। মার্কার পেন প্রকারভেদে প্রতি পিস ১০ টাকা থেকে বেড়ে ২০ টাকা হয়েছে। এছাড়া সাধারণ ক্যালকুলেটর প্রকারভেদে দাম বেড়েছে ১০ থেকে ৩০ টাকা সায়েন্টিফিক ক্যালকুলেটর ১২৫০ থেকে দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১৫৫০ টাকায়। জ্যামিতি বক্স ৫০ টাকা থেকে বেড়ে ৮০ টাকা ও ১০০ টাকা থেকে বেড়ে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্লাস্টিক ও স্টিলের স্কেল ডজনপ্রতি ২০ টাকা থেকে ৩০ টাকা বেড়েছে। রাবার ডজনপ্রতি ১০ টাকা থেকে ১৫ টাকা বেড়েছে।

স্টেশনারি দোকানগুলোতে নেই কোন মূল্য তালিকা। যে যার মতো দাম হাঁকিয়ে নিচ্ছেন ক্রেতাদের কাছ থেকে। অন্যদিকে কোম্পানি থেকে দেওয়া মূল্যের উপর নতুন মূল্য বসিয়ে দিয়েছেন কিছু কিছু দোকানদার।
পৌরসভা মার্কেটের সৌদিয়া স্টোরের স্বত্বাধিকারী আমান উল্লাহ বলেন, এ্যা টু জেট (সবকিছুর) সব দাম বেড়েছে। আগে যে খাতা ২২০ টাকা বিক্রি করতাম তা এখন ৩৫০-৭০ টাকা করে বিক্রি করতে হচ্ছে। কারণ আমরা পণ্য পাচ্ছি না যথাযথ। সবকিছুর দাম বেশি। আগে যে জ্যামিতিবক্স ৫০ টাকা বিক্রি করতাম তা ১৫০ টাকা বিক্রি করতে হচ্ছে। আমাদের কিছুই করার নেই। কোম্পানি বাড়িয়ে দিয়েছে দাম। এখানে আমাদের কোন হাত নেই।
মেসার্স ইউনাইটেড স্টেশনারির প্রোপ্রাইটর মো. অহিদুল আলম বলেন, এখন সবকিছুরই দাম বেশি। তাই শিক্ষা উপকরণের দামও বেড়েছে। আমরা স্বল্প টাকা লাভ করেই বিক্রি করছি সবকিছু।

বইয়ের মুল উপকরণ কাগজের দাম বেড়ে যাওয়ায় ৫০-১০০ টাকা বেড়েছে সব বইয়ের দাম।

রক্ষিত মার্কেটের রহমানিয়া লাইব্রেরির স্বত্বাধিকারী মো. নুরুল ইসলাম বলেন, কাগজের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বইয়ের দামও বৃদ্ধি পেয়েছে। কাগজ দিয়েই বইয়ের সবকিছুই করা হয়।

অন্বেষা লাইব্রেরির প্রোপ্রাইটর বলেন, সব বইয়ের দাম ৩০-৪০ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। সবকিছুর দামই এখন বাড়তি।

হঠাৎ করেই সবধরনের শিক্ষা উপকরণের দাম বেড়ে যাওয়ায় হিমশিম খাচ্ছেন অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীরা।
আবুল হাশেম নামের একজন অভিভাবক বলেন,

আমাদের মতো মধ্যবিত্তদের খুবই কষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এভাবে শিক্ষা উপকরণের দামও বাড়লে কোথায় যাব বলেন। শিক্ষা উপকরণের দাম বাড়ার কারণ হিসেবে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকে দায়ি করছেন ব্যবসায়িরা এবং সাধারণ নাগরিকরা বলছেন তদারকি না থাকায় যে যার মতো দাম হাঁকিয়ে দোকানদারেরা ঠকাচ্ছে সাধারণ মানুষদের।

সর্বশেষ খবর

বঙ্গোপসাগরে মালয়েশিয়াগামী ট্রলার ডুবির ঘটনায় এবার ভেসে এলো শিশুর লাশঃ মৃত্যু বেড়ে ৪, জীবিত উদ্ধার-৪৫

নিজস্ব প্রতিবেদক : বঙ্গোপসাগরে মালয়েশিয়াগামী ট্রলার ডুবির ঘটনায় আরো এক শিশুর লাশ ভেসে এসেছে। মঙ্গলবার রাত ৮ টার দিকে ওই শিশুর লাশ ভেসে আসে। এনিয়ে...

এবার নাইক্ষ্যংছড়ি দোছড়ি সীমান্তে মাইন বিস্ফোরণে পা উড়ে গেছে এক ব্যক্তির

আয়াছুল আলম সিফাত  : এবার বান্দরবানের দোছড়ি ইউনিয়নের ছেড়াকুম এলাকায় বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে মাইন বিস্ফোরণে আব্দুল কাদের নামে এক ব্যক্তির পা উড়ে গেছে। চোখসহ শরীরের বিভিন্ন...

আজ ভদকা দিবস

টিটিএন ডেস্ক : আজ পালিত হচ্ছে ভদকা দিবস। ভদকা বা ভোদকা হচ্ছে এক প্রকার পাতিত কড়া মদ। ভদকা শব্দটি এসেছে রুশ শব্দ ভোদা থেকে, যার...

‘সমাধানের চেষ্টা চলছে, কতক্ষণ লাগবে বলা যাচ্ছে না’

টিটিএন ডেস্ক : জাতীয় গ্রিডে ত্রুটির কারণে ঢাকাসহ দেশের বেশ কয়েকটি জেলায় বিদ্যুৎ বিপর্যয় ঘটেছে। সমস্যা সমাধানে চেষ্টা চলছে, তবে কতক্ষণ লাগবে এখনই বলা যাচ্ছে...