বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১, ২০২৩

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সবার আগে

বাবার লাশ রাস্তায়, পেনশনের টাকা নিয়ে বিবাদে ভাই-বোনরা

টিটিএন ডেস্ক :

পদ্মা অয়েল কোম্পানিতে টানা ৩০ বছর চাকরি জীবন শেষ করে ৬২ বছর বয়সে অবসর গ্রহণ করেন মনির আহমদ। কর্মক্ষেত্র থেকে ভাতা হিসেবে পান ৫০ লাখ টাকা। কিন্তু মারণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে গতকাল শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) বিকেলে তিনি মারা যান। পিতার মৃত্যুর পরেই বাবার মরদেহের দাফন আটকে দিল ২ ছেলে ৩ মেয়ে। তাদের মধ্যে সেই টাকার ভাগ-বাটোয়ারারা নিয়ে দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে।

আজ রোববার (২৫ ডিসেম্বর) বিকেলে পুলিশ ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্য নিয়ে সালিশ বৈঠক বসে। কিন্তু কোনো সমাধান হয়নি। প্রবাস থেকে অন্য ছেলে ফেরার অপেক্ষা করছেন তারা। ঘটনাটি চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার বড়উঠান ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে কেরানির বাড়ির।

জানা যায়, আশপাশের এলাকার কয়েকশ মানুষ জড়ো হয়েছেন বাড়িতে। বাড়ির উত্তর পাশে একটি খোলা মাঠে অ্যাম্বুলেন্সে মনির আহমদের মৃতদেহ রাখা হয়। নিহতের ঘরে পুলিশ, ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি এবং ছেলে-মেয়েরা বৈঠকে বসেছিলেন। কিন্তু বৈঠকে টাকার সমাধান না হওয়ায় সবাই চলে যাচ্ছিলেন।

মনির আহমদের তিন মেয়ে বেবি আক্তার, লিপি আক্তার ও জোছনা আক্তার। দুই ছেলে জাহাঙ্গীর আলম ও আলমগীর। আলমগীর বিদেশে থাকেন। বাবার মৃত্যুর খবর শুনে রোববার দেশের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন।

মৃতের বড় ছেলে জাহাঙ্গীর আলমের (৪০) অভিযোগ, বড় বোন বেবি আক্তার বাবা মনির আহমদের অসুস্থতার সুযোগে কৌশলে এবি ব্যাংক চাতরী আনোয়ারা শাখা থেকে ৩০ লাখ টাকা তুলে নেয়। এই টাকা সে তার মেয়ের ব্যাংক হিসাবে জমা করেছে। এখন সে অস্বীকার করছে।

তিনি আরও বলেন, বাবাকে সিএসসিআর মেডিকেল থেকে অন্য মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বুধবার অথবা বৃহস্পতিবার যে কোনো এক দিন ব্যাংকে নিয়ে গেছে। এই সময়ের মধ্যে টাকা তুলে নেয় সে। এখন আমার ছোট ভাইও বিদেশ থেকে আসতেছে। তার পর দাফনের চিন্তা হবে।

তবে অভিযুক্ত বেবি আক্তার বলেন, টাকার বিষয়ে আমি কিছু জানি না, বাবা হয়তো আমার ব্যাংক হিসেবে টাকা দিলেও দিতে পারে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য সাহাব উদ্দিন বলেন, শনিবার সন্ধ্যায় মনির আহমদের লাশ বাড়িতে এনেছে। কিন্তু নিহতের ছেলেমেয়েদের মধ্যে টাকার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে সমস্যা চলছে। মৃতের ছেলে একটা বিদেশে আছে, সেও দেশে আসতেছে।

স্থানীয় চেয়ারম্যান দিদারুল আলম বলেন, আমি রোববার সকালে দুইপক্ষকে অনেক চেষ্টা করেও সমাধান করতে পারিনি।

কর্ণফুলী থানার ওসি দুলাল মাহমুদ বলেন, মনির আহমদ নামে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পর সন্তানদের মধ্যে টাকার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। নিহতের ৫০ লাখ টাকা থেকে এক মেয়ে ৩০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানা যায়।

সর্বশেষ খবর

রামুর গর্জনিয়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণ গেল যুবকের

নিজস্ব প্রতিবেদক : কক্সবাজারের রামুর গর্জনিয়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক যুবক প্রাণ হারিয়েছে। মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ইউনিয়নের পূর্বজুমছড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মারা যাওয়া যুবকের নাম...

স্থানীয় জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান তৈরি করছে সরকারের ইজিপিপি প্রকল্প- উখিয়ায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক

শামিমুল ইসলাম ফয়সাল, উখিয়া: রোহিঙ্গাদের কারণে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়া স্থানীয় জনগোষ্ঠীর অর্থনীতি সচল রাখার পাশাপাশি কর্মস্থান তৈরিতে ভূমিকা রাখছে সরকারের অতিদরিদ্রের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি (ইজিপিপি)...

জিরো পয়েন্টে থাকা রোহিঙ্গারা ঢুকে পড়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিটিএন ডেস্ক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশে-মিয়ানমার জিরো পয়েন্টে যেসব রোহিঙ্গা ক্যাম্প ছিল, তা এখন আর নেই। কিছু রোহিঙ্গা ঢুকে পড়েছে। তবে...

বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা- রামুতে মাহাবুবুল হক মুকুল

হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী: বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা। বাঙালীর জন্য মমত্ববোধ ভালোবাসা দেখিয়ে, কৃষক-শ্রমিকের উন্নতির জন্য কাজ করেছেন। বাংলার কৃষক-শ্রমিকের অধিকার আদায়ের জন্য কাজ...