শনিবার, নভেম্বর ১৯, ২০২২

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সবার আগে

প্রথমবারের মতো ব্যাঙডেবায় রক্তের গ্রুপ নির্ণয়ঃবিদ্যুৎ আর সড়কের দাবী স্থানীয়দের

শিপ্ত বড়ুয়া,রামু:

কক্সবাজার জেলার রামু উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি এলাকা ব্যাঙডেবাতে প্রথমবারের মত রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচি করেছে জোয়ারিয়ানালা স্বেচ্ছাসেবক টিম, কক্সবাজার ব্লাড ডোনারস সোসাইটি ও ব্যাংডেবা স্টুডেন্টস কো-অপারেটিভ এসোসিয়েশন। জানা গেছে, বৃহত্তর জোয়ারিয়ানালার প্রাক্তন চেয়ারম্যান মরহুম মাহাবুবর রহমান চৌধুরী মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে এই রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচি পালন করেন সংগঠনগুলো।

শুক্রবার রক্তদানে সচেতনতা বৃদ্ধিতে ব্যাংডেবা এলাকায় বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কার্যক্রম হয়। এই কর্মসূচির সমন্বয়কারীদের মধ্যে মোহিব্বুল মোক্তাদীর তানিম বলেন,প্রায় সাড়ে তিন শতাধিক স্থানীয়দের রক্ত গ্রুপ নির্ণয় করে কার্ড প্রদান করা হয়েছে। বর্তমানে ভোটার আইডি কার্ড, স্কুলের ভর্তি সহ বিভিন্ন প্রশাসনিক, তথ্যভিত্তিক কার্যক্রমে রক্তের গ্রুপ সংযুক্ত করা অত্যাবশ্যক। তাই, বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় স্থানীয় অধিবাসীদের জন্য উপকার বয়ে আনবে। আর এই গ্রামে এটাই প্রথম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচি।

ব্যাঙডেবা গ্রামটিতে প্রায় আশিটি (৮০) পরিবার বসবাস করে। স্থানীয় বয়োজষ্ঠদের অনেকে বলেন, ১৯৩০ সাল হতেই এখানে জনবসতি৷ রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের অধীন হলেও এই গ্রামটি দুর্গম পাহাড়ী জায়গায় হওয়ায় সরকারি সহায়তা তেমন পৌঁছায়না।

রক্তের গ্রুপ নির্ণয় শেষে স্থানীয় জনগণ এলাকার নানান সমস্যার কথা জানান। স্থানীয় বাসিন্দা মৌলভী হামিদ হোসাইন বলেন, অবহেলিত এই ব্যাঙডেবা গ্রামে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় খুব ভালো একটি উদ্যেগ। কিন্তু প্রধান যে সমস্যা তা হলো আমাদের এলাকায় বিদ্যুৎ নাই আর কোন পাঁকা রাস্তা নাই। আমরা খুব সমস্যার মধ্যে আছি।

সূত্র বলছে, প্রস্তাবিত জোয়ারিয়ানালা – ব্যাঙডেবা- ঈদগড় এর দশ কিলোমিটার রাস্তার মধ্যে তিন কিলোমিটার অনুমোদিত হলেও বাকি সাত কিলোমিটার রাস্তা বনবিভাগের আপত্তির কারণে এখনো অনুমোদন হয়নি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে আরেক বাসিন্দা বলেন, এলাকায় রাস্তাঘাট না হওয়ার কারণে অপহরণ আতংক দিন দিন বাড়ছে। গত কয়েকবছরে অনেক ডাকাতির ঘটনাও এখানে ঘটেছে।

এদিকে স্থানীয় শিক্ষার্থী মোহাম্মদ মিয়া বলেন, এতদিন ধরে আমাদের গ্রামের কেউই নিজেদের রক্তের গ্রুপ কি তা জানতো না। আজকে এই কর্মসূচির মাধ্যমে তা সবাই জানলো। আমাদের এখন প্রাণের দাবী রামু উপজেলার এই দুর্গম এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হোক। রামু শতভাগ বিদ্যুৎতায়িত দাবী করা হলেও আমাদের এখানে কোন বিদ্যুত সংযোগ নেই।

আয়োজকেরা জানান ভবিষ্যতেও এই এলাকায় সমাজসেবামূলক বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে। থেকে শুরু হওয়া রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচি বিকেল চারটার দিকে শেষ হয়।

সর্বশেষ খবর

জাতিসংঘে রোহিঙ্গা প্রস্তাব গৃহীত : প্রত্যাবাসনের পরিবেশ সৃষ্টি করার তাগিদ

টিটিএন ডেস্ক : মিয়ানমারের জাতিগত রোহিঙ্গাদের নিরাপদ ও টেকসই প্রত্যাবাসনের পরিবেশ সৃষ্টি করতে দেশটির প্রতি আহ্বান জানিয়ে সর্বসম্মত একটি প্রস্তাব (রেজল্যুশন) গ্রহণ করেছে জাতিসংঘ। গত...

কক্সবাজার উপকূলে কেন মাছ ভেসে আসছে

টিটিএন ডেস্ক : প্রায় ১৫ দিন ধরে কক্সবাজারের উপকূল থেকে গভীর সমুদ্রের দিকে জেলার সমুদ্র উপকূলে বাতাস প্রবাহিত হচ্ছে। এই কারণে উপকূলের সমুদ্রপৃষ্ঠের অপেক্ষাকৃত গরম...

অশিক্ষিত মহিলা প্রধানমন্ত্রী হলে দেশ অনেক আগেই শ্রীলংকা হতো- সদর উপজেলা আ’লীগের সম্মেলনে স্বপন

  সিয়াম সোহেল: কক্সবাজার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে পৌর প্রিপ্যারটরি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে...

নাইক্ষ্যংছড়িতে হাতির আক্রমনে নিহত বিজিবি সদস্যের পরিবারকে অর্থ সহায়তা প্রদান

হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী: রোহিঙ্গা সমস্যা, মিয়ানমার সীমান্তে উত্তেজনা ও চোরাচালান দমনে বিজিবি সদস্যরা কঠিন পরিস্থিতি মোকাবেলা করছে বলে মন্তব্য করেছে বিজিবির কক্সবাজার রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার...