সোমবার, জানুয়ারি ৩০, ২০২৩

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সবার আগে

নারকেল শূন্য নারকেল জিঞ্জিরা সেন্টমার্টিন

প্রধান প্রতিবেদক:

বাংলাদেশের শেষ সীমান্তে সাগরের মাঝখানে অবস্থিত ৮ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের সেন্টমার্টিন দ্বীপে প্রায় ১০ হাজার মানুষের বসবাস। প্রচুর নারকেল পাওয়া যায় বলে দ্বীপটি স্থানীয়ভাবে নারকেল জিঞ্জিরা নামেও পরিচিত। সেখানকার অন্যতম অর্থকরী ফসলও নারকেল। কিন্তু গত দুই বছর ধরে দ্বীপের নারকেল গাছগুলোতে ফলন নেই।

বিষয়টি অবাক করার মতো হলেও স্থানীয়রা বলছেন, করোনা ভাইরাস আক্রমণের শুরুর দিকে নারকেল গাছে এক ধরণের কালোর ধোঁয়ার মতো আবরণ দেখতে পেয়েছিলেন তারা। যা দেখতে কুয়াশার মতো। সেই কুয়াশা বেশকিছু দিন লেগেছিল গাছে। এরপর থেকে আর ফলন হচ্ছে না। এরফলে আয়ের অন্যতম একটি উৎস বন্ধ হয়ে গেছে সেখানকার মানুষের।

গত দুই বছর ধরে সেখানে ডাব না থাকায় ব্যবসায়ীরা চাহিদা মেটাতে টেকনাফ থেকে ডাব নিয়ে যায় দ্বীপে। তবে সেই ডাবের প্রতি পর্যটকদের আকর্ষণ নেই বলছেন ব্যবসায়ীরা।
তারা বলছেন, মৌসুমে ৪ মাস ডাব বিক্রি করে বেশ ভালো আয় হতো তাদের। যা দিয়ে বাকি ৮ মাস পার করতেন বেশ ভালোভাবে। কিন্তু এখন সেন্টমার্টিনে উৎপাদিত ডাব না থাকায় তেমব বিক্রিও নেই দোকানে।

একটি দ্বীপের অন্যতম অর্থকরী ফসলের বছর দুয়েক ধরে ফলন না হলেও সেই খবর নেই কৃষি বিভাগের কাছে। অন্যদিকে জেলা প্রশাসন বলছেন, বিষয়টি বেশ উদ্বেগের। কেনো ফলন হচ্ছে না সেটি খতিয়ে দেখে গবেষণার জন্য সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান গুলোকে তারা তাগাদা দেবে।

বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ও সমুদ্র বিজ্ঞানী আবু সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দার বলছেন, দ্বীপে একের পর এক স্থাপনা হওয়ার কারণে নারকেল গাছের শেকড় বিস্তৃত হতে পারছে না। প্রচুর পানি উত্তোলনের কারণে ভূগর্ভেও পানি সংকট তৈরি হয়েছে সেখানে। এছাড়াও সম্প্রতি নারকেল গাছে এক ধরণের মড়ক দেখা গিয়েছে। তাই সববিষয় মাথায় রেখে অধিকতর গবেষণা দরকার বলে মনে করছেন  বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউট,মহাপরিচালক, আবু সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দার।

দেশের একমাত্র প্রবাল সমৃদ্ধ দ্বীপের ৯০ শতাংশ মানুষের জীবিকা নির্ভর করে পর্যটনের উপর। জাহাজ চলাচল নিয়ে চক্রান্তের ফলে এবছর দ্বীপে অল্প সংখ্যক পর্যটক যাতায়াত করছে। তাই এমনিতে সেখানে অভাব অনটন শুরু হয়েছে ইতোমধ্যে। তার উপর সেখানকার অর্থকরী ফসলের কেনো উৎপাদন হচ্ছে না তা নিয়ে মাথাব্যথা নেই সরকারের কোন দপ্তরের। এভাবে চলতে থাকলে এক সময় তীব্র আয় সংকটে পড়বে বলে মনে করছেন দ্বীপের মানুষগুলো।

সর্বশেষ খবর

নির্মাতা কাওসার চৌধুরী পাচ্ছেন জাতীয় চলচিত্র পুরস্কার

নিজস্ব প্রতিবেদক: কক্সবাজারের মহেশখালীর মাতারবাড়ির কৃতি সন্তান বিশিষ্ট চলচ্চিত্র নির্মাতা ও অভিনেতা কাওসার চৌধুরী জাতীয় চলচিত্র পুরুষ্কার ২০২১ এর জন্য মনোনীত হয়েছেন। তিনিই প্রথম ব্যাক্তি...

পাঠ্যবই নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

টিটিএন ডেস্ক: শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, নতুন পাঠ্যক্রমে কোনো ভুলভ্রান্তি থাকলে তা সংশোধন করা হবে। তবে এ নিয়ে অপপ্রচার চলছে। আওয়ামী লীগ সরকার কখনো ইসলামের...

কক্সবাজারের ই”য়াবার মামলায় ৮ মিয়ানমার নাগরিকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

আব্দুর রশিদ মানিক: দুই লক্ষ ইয়াবা উদ্ধারের মামলায় আট রোহিঙ্গাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করেছে কক্সবাজারের অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত। একইসাথে দন্ডিতদের প্রত্যেককে ১ লক্ষ টাকা...

২৭ দিনে ১৬৭ কো‌টি ডলার পাঠালেন প্রবাসীরা

টিটিএন ডেস্ক: বছরের শুরুতে প্রবাসী আয়ের ঊর্ধ্বমুখী ভাব অব্যাহত আছে। চলতি বছরের প্রথম মাস জানুয়ারির ২৭ দিনে ১৬৭ কো‌টি মার্কিন ডলার পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। টাকার অংকে যার...