রবিবার, জানুয়ারি ২৩, ২০২২

ঈদগাঁওতে তলিয়ে যাওয়া ব্রীজের মাঝখানে স্থানীয়দের উদ্যোগে ঝুলন্ত ব্রীজ নির্মাণ!

শাহিদ মোস্তফা শাহিদ, ঈদগাঁও:

গত বর্ষা মৌসুমে কয়েক দফা বন্যা হয়। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় ঈদগাঁওয়ের বিভিন্ন এলাকার সড়ক, ব্রীজ ও কালভার্ট। এর মধ্যে পোকখালী-জালালাবাদ সংযোগ করা একটি ব্রীজের মাঝখানে ভেঙে যায়। বন্যায় ভেঙে ৫০/৬০ মিটার ভাঙনের ১০ মাস পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত সংস্কারের দৃশ্যমান কোনো উদ্যোগ নেই। আর তাতে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন ২ ইউনিয়নের ১০/১২ হাজার মানুষ৷ ভাঙন কবলিত স্থানে একটি নৌকা রয়েছে।

এই নৌকা দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছেন শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী।২০২১ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে পরপর কয়েক দফা বন্যায় জালালাবাদ ফরাজি পাড়া সড়কে ব্যাপক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, যদিও বা পরবর্তীতে সংস্কার করা হয়েছে।

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে ৫০/৬০ মিটার ব্রীজটি তলিয়ে যায়। ব্রীজ ভেঙে যাওয়ায় দুই ইউনিয়নের সরাসরি যান চলাচল বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। প্রায় ১০ মাসেও কোনো উদ্যোগ দৃশ্যমান না হওয়ায় এলাকাবাসীর উদ্যোগে একটি কাঠের ঝুলন্ত ব্রীজ তৈরি করার উদ্যোগ নেন।

এলাকাবাসী জানান, একটি নৌকা নিয়ে নিয়মিত পারাপার করতে গিয়ে ভোগান্তির পাশাপাশি মূল্যবান সময়ও নষ্ট হচ্ছিল। তাছাড়া ঝুকিপূর্ণও বটে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর

সূত্র জানায়, চলতি বছরের বন্যায় ঈদগাঁওতে সড়ক, কালভার্ট, ব্রীজের ব্যাপক ক্ষতি হয়। উপজেলার কাঁচা-পাকা সড়কে তৈরি হয়েছে অসংখ্য ছোট-বড় গর্ত। খানাখন্দে ভরে গেছে সড়ক। বিচ্ছিন্নভাবে কিছু সড়কের জরুরি মেরামত কাজ হলেও পরিপূর্ণ কাজ এখনো শুরু না হওয়ায় জনভোগান্তি রয়েই গেছে। এসবের জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়।

এই ব্রীজের যাতায়াতকারী কুতুুুব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ঈদগাঁও বাজারে জরুরি কাজে আমরা এই ব্রীজটা ব্যবহার করি। এটি ইউনিয়নের একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্রীজ। কর্তৃপক্ষের উচিত ছিল দ্রুত ব্রীজটি সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া। কিন্তু ১০ মাস হয়ে গেছে, কোনো কাজ হয়নি। ব্রিজ ভাঙা থাকার করণে বিকল্প উপায়ে ঈদগাঁও বাজারসহ জেলা সদরে যেতে হচ্ছে আমাদের। এতে বাড়তি টাকা খরচ হয়। সময়ও বেশি লাগে।

পূর্ব পোকখালী এলাকার বাসিন্দা কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি এডভোকেট একরামুল হুদা বলেন, ‘কোনো অসুস্থ রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হলে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয় এই এলাকার মানুষের।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজর দেওয়া দরকার। আর ভোগান্তি কমাতে স্থানীয়দের আর্থিক সহযোগিতায় আপদকালীন একটি কাঠের ঝুলন্ত ব্রীজ মেরামত করা হয়েছে। এটি করতে সপ্তাহ ব্যাপী সময় লেগেছে।

তিনি আরো বলেন, হালকা এবং মাঝারি ধরনের যানবাহন চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে ঝুলন্ত ব্রীজটি। কাল পরশুর মধ্যে এটি জনগণের জন্য উম্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

আরও খবর

Stay Connected

0FansLike
3,134FollowersFollow
19,100SubscribersSubscribe
- test Ad -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ