মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২২

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সবার আগে

অতিরিক্ত সচিবের পক্ষে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাফাই

টিটিএন ডেস্ক:

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেছা বেগমসহ সংশ্লিষ্টদের পক্ষে সাফাই গেয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড. জাহিদ মালেক।

ড. জাহিদ মালেক বলেছেন, ‘আমরা সাংবাদিকদের সম্মান করি এবং সবসময়ই আপনাদের ডেকে নিয়ে সব তথ্য দেই। তথ্য নেওয়ার জন্য উনি (রোজিনা ইসলাম) ঘরে ঢুকে ক্যামেরার দিয়ে ছবি তুলেছে, এটাকে কী বলবেন?

মঙ্গলবার (১৮ মে) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভা থেকে বের হয়ে যাওয়ার পথে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

রোজিনা ইসলামকে গলা চেপে ধরা হয়েছে এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‌‘আমরা এ বিষয়টি অবশ্যই তদন্ত করে দেখবো। আমরা জিজ্ঞেস করেছি যে, এ ধরনের শারীরিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে কিনা? উনি একজন সিনিয়র অফিসার। উনি বলছেন, শারীরিক নির্যাতন আমি (স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা) করিনি বরং আমাকেই নির্যাতন করা হয়েছে। তিনি (সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম) আমার গায়ে খামচি দিয়েছেন, আমাকে থাপ্পড় দিয়েছেন। আমরা তো তাকে শুধু আটকানোর চেষ্টা করেছি। তারপর তো পুলিশই চলে এসেছিল। এরপর পুলিশের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ কথাগুলো উনারা আমাকে বলেছে। পরবর্তী সময়ে এটা নিয়ে যখন আরও আলোচনা হবে, তখন তো সত্য বেরিয়ে আসবে। কোনো নির্দোষ লোক সাজা পাক এটা আমরা চাই না। কারণ আপনারাও দেশের জন্য কাজ করেন আমরাও দেশের জন্য কাজ করি। আমরা এমন কিছু করবো না যে, দেশের মানুষের বা রাষ্ট্রের ক্ষতি হয়।’

তিনি বলেন, ‘প্রথমে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা নিজেরাই এটা ডিল করছিলেন। মানে সাংবাদিক রোজিনা যেটা নিয়েছিলেন ওটা তার কাছ থেকে নিতেই অনেকক্ষণ সময় লেগেছে। এটাই আমাকে বলা হয়েছে। শারীরিক নির্যাতন বা আঘাত করা হয়নি। তাকে শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে এ কথাটা কিন্তু সঠিক নয়। একজন অতিরিক্ত সচিব ও দুইজন উপসচিব পদমর্যাদার নারী ওই সময় উপস্থিত ছিলেন। তারাই প্রাথমিকভাবে রোজিনার সঙ্গে ডিল করেছেন। পরবর্তীতে যখন দেখা গেল রাষ্ট্রের সিক্রেটের বিষয় আসছে, তখন পুলিশকেও ডাকা হয়েছিল। এই বিষয়টি অনাকাঙ্ক্ষিত। আমরা তো আপনাদের সঙ্গে কো-অপারেট করেই কাজ করছি। যখনই আমার দরজার সামনে সাংবাদিকরা দাঁড়িয়ে যান আমি কিন্তু ওভাবে দাঁড়িয়েই আপনাদের সঙ্গে কথা বলি। যেখানেই চেয়েছেন, আমরা সেখানেই কথা বলি । আমার পক্ষে যতটুকু সম্ভব বলা, রাষ্ট্রীয় বিধিনিষেধটুকু বাদ দিয়ে আমি বলি এবং আগামীতেও সেটা করবো।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমার মতে এই ধরনের ঘটনার তো দরকার ছিল না। ওখানে এটা নেওয়ার কোনো প্রয়োজন ছিল না বা ঢুকার কোনো প্রয়োজন ছিল না। ঘটনা এতোটুকুই আমি জানি। কারণ আমি তো তখন ওইখানে উপস্থিত ছিলাম না। আমি বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে এগুলো জেনেছি।’

২০১১ সালের আইন থাকতে প্রায় ১০০ বছর আগের আইনে কেন রোজিনা ইসলামকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি তো আর আইন বিশেষজ্ঞ নই। উনি যে দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করেছেন সেই প্রতিবেদনের জন্য আজকের এ ঘটনা নয়। আজকের ঘটনার ওপরই আপনাকে কথা বলতে হবে। ওইখানে একজন লোক সরকারি ডকুমেন্ট নিয়ে যাচ্ছে, ফাইলসহ নিয়ে যাচ্ছে, ছবি তুলছে এগুলো রাষ্ট্রীয় সিক্রেট ডকুমেন্ট, এগুলো টিকা সংক্রান্ত যেসব নথি বাইরে প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সেগুলো যদি কেউ নেয়, তাহলে আমরা কী করতে পারি? আর এই আইনের বিষয়ে আমি আর কিছু বলতে পারবো না। কারণ আমি এখনও ওখানে যাইনি।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ফাঁকা রুমে ফাইল রাখা ছিল। উনি খালি রুমে ঢুকছেন। সেটা যদি ফাঁদে ফেলা হয়, কেউ যদি অন্যায় করে সেটাতো সামনে বেরিয়ে আসবে। কেউ যদি অন্যায় করে থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এটাও আমি বলছি, আমাদের মন্ত্রণালয় থেকে যদি কেউ অন্যায় করে থাকে তাহলে সেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নেব।’

মন্ত্রী বলেন, ‘টিকার সংকট দেখা দিয়েছে, সেই টিকা নিয়ে আমরা দিনরাত পরিশ্রম করছি। চীন, রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এগ্রিমেন্ট পর্যায়ে চলে গেছে। সেই জিনিসগুলো যদি কেউ নিতে চায় বা প্রকাশ করতে চায় তাহলে রাষ্ট্রীয়ভাবে আমাদের ক্ষতি হয়ে যাবে। কেননা ওই সব দেশগুলো আমাদের সঙ্গে আর কূটনৈতিক সম্পর্ক রাখবে না। কারণ ওই দেশগুলোর সঙ্গে সেভাবেই চুক্তি করেছি আমরা।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এখানে নয় বা ছয় ঘণ্টা তাকে আটকে রাখা হয়নি। আধা ঘণ্টার মধ্যে পুলিশ ডাকা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেও জানেন। তিনি তো আমার আগেই এ ঘটনা জানতেন। হয়ত রোজিনা ইসলাম পুলিশকে সহযোগিতা করছিলেন না। যদি কর্মকর্তারা উনাকে শারীরিক নির্যাতন করে থাকেন, তাহলে সেটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। তাছাড়া যদি রোজিনা ইসলাম অপরাধ না করে থাকেন তাহলে তো আইনের মাধ্যমে সেটার প্রমাণ হয়ে যাবে। এগুলো সবই রাষ্ট্রের কাজ। এখানে কারও বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত কোনো আক্রোশ নেই।’

সর্বশেষ খবর

২৪ দেশের সেনা কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে কক্সবাজারে শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক সেমিনার

নিজস্ব প্রতিবেদক: কক্সবাজারে শুরু হয়েছে ৪৬ তম ইন্দো প্যাসিফিক আর্মিজ ম্যানেজম্যান্ট সেমিনার। ইনানীর হোটেল সী পার্লে মঙ্গলবার শুরু হওয়া এ সেমিনারে অংশ নিচ্ছে ২৪ দেশের উচ্চপদস্থ...

মেরিন ড্রাইভে ভেঙ্গে পড়েছে গাছ: যান চলাচল বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক: কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভের পৃথক দুটি স্থানে রাস্তার পাশে দুটি গাছ ভেঙ্গে পড়েছে। মঙ্গলবার ভোরে হিমছড়ি ও সোনার পাড়ায় গাছ দুটি ভেঙ্গে পড়ে। এরফলে মেরিন...

মা হচ্ছেন মাহি

টিটিএন ডেস্ক : মা হতে চলেছেন ঢালিউডের জনপ্রিয় নায়িকা মাহিয়া মাহি। ফেসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে সুখবরটি জানিয়েছেন মাহি নিজেই। সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) আপডেট করা ওই পোস্টে...

ঈদগাঁওতে ফের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানঃ ১ লাখ ২৬ হাজার টাকা অর্থদন্ড

শাহিদ মোস্তফা শাহিদ, ঈদগাঁও: কক্সবাজারের ঈদগাঁও বাজার ও চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কে ফের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ জাকারিয়া। ১২ সেপ্টেম্বর ( সোমবার) বিকেল...